নারায়ণা হেলথের চিকিৎসকদের সাথে প্রাভা হেলথ কন্টিনিউইং মেডিকেল এডুকেশন (সিএমই) কার্যক্রম আয়োজন।


*নারায়ণা হেলথের চিকিৎসকদের সাথে প্রাভা হেলথ কন্টিনিউইং মেডিকেল এডুকেশন (সিএমই) কার্যক্রম আয়োজন।

এপ্রিল ২০, ২০১৮, ঢাকা, বাংলাদেশ- বনানীর প্রাভা ফ্যামিলি হেলথ সেন্টারে শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, বিকেল ৬টায় প্রাভা হেলথের পক্ষ থেকে দুইটি কন্টিনিউইং মেডিকেল এডুকেশন (সিএমই) কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়। ডাঃ দেবী শেঠীর পুত্র এবং ভারতের ব্যাঙ্গালোরের নারায়ণা হেলথ সিটির কার্ডিওথোরাসিক সার্জন এবং ডাঃ ভারুণ শেঠি এবং রোবোটিক সার্জন ও গ্যাস্ট্রোএন্ট্রোলজিস্ট ডাঃ অশ্বিনীকুমার কুদারির উপস্থিতিতে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ডাঃ শেঠী কৃত্রিম হার্ট ট্রান্সপ্ল্যান্ট সম্পর্কে বলেন এবং ডাঃ কুদারী গ্যাস্ট্রো রোবোটিক সার্জারিতে তার কাজের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।

 

বাংলাদেশের মেডিকেল কমিউনিটির সাথে ডাঃ শেঠী ও ডাঃ কুদারীর অভিজ্ঞতা ভাগ করতে পেরে প্রাভা হেলথ যারপনাই আনন্দিত। নারায়ণা হেলথ এর সাথে প্রাভা হেলথের এই অভিনব অংশীদারিত্বের ফলে একজন রোগী ভিডিও কনফারেন্স এবং ডায়াগনসটিক প্রযুক্তির সহায়তায় নারায়ণা হেলথের চিকিৎসকদের কাছ থেকে পরামর্শ নিতে পারবেনবাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর ১০০,০০০ রোগী নারায়ণা হেলথে চিকিৎসা গ্রহণের জন্য ভারতে যান

 

প্রাভা হেলথের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী পরিচালক (সিইও) মিস সিলভানা সিনহা বলেন, "যাদের কাজ দ্বারা আমরা অণুপ্রানিত এমন একটি প্রতিষ্ঠানের সাথে আমাদের সম্পর্ককে গভীর করতে পেরে এবং নারায়ণা হেলথের সম্মানিত চিকিৎসকদের জন্য এই আয়োজন করতে পেরে আমরা রোমাঞ্চিত” তিনি আরও বলেন, “সীমানার গন্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশে রোগীদের উন্নত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে প্রাভা ও নারায়ণা একযোগে কাজ করছে"

 

প্রাভা হেলথের সিনিয়র মেডিকেল ডিরেক্টর ডাঃ সিমীন মজিদ আখতার বলেন, "যে সকল রোগীরা নারায়ণা হেলথ থেকে চিকিৎসা এবং ফলো আপ এ আগ্রহী তাদের যাত্রার আজ শুরু হলো, এবং এ যাত্রায় এমন স্বনামধন্য চিকিৎসকদের সাথে পেয়ে আমরা আনন্দিতআমরা বিশ্বাস করি যে বাংলাদেশে রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা প্রদানে প্রাভা ও নারায়ণা হেলথের এই সংযোগ আরো সুযোগ সৃষ্টি করবে”

 

"পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের তুলনায় বাংলাদেশি এবং ভারতীয়রা হৃদরোগে বেশি আক্রান্ত। ৪০ ঊর্ধ সকলের জন্যেই আমার পরামর্শ থাকবে যেন তারা হৃদরোগের ঝুঁকি প্রতিরোধে বিস্তারিত চেক আপ করান”,  ডাঃ ভারুণ শেঠী"প্রাভা হেলথের সহযোগে বাংলাদেশের রোগীরা নারায়ণে আসার আগে এবং পরে প্রাভা থেকেই তাদের চেক আপ করাতে এবং টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে আমাদের ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন"

 

"রোবোটিক সার্জারি হল সর্বশেষ প্রযুক্তি যেখানে ল্যাপ্রোস্কোপিক সার্জারির তুলনায় আরো সঠিক এবং নির্ভুলভাবে সার্জারি করা হয়", ডাঃ অশ্বিনীকুমার কুদারীতিনি আরো বলেন, "বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবা্য় প্রাভা হেলথ একটি বিস্ময়কর ধারণার সূচনা করেছে, যেখানে রয়েছে অত্যাধুনিক ও সর্বশেষ প্রযুক্তির ব্যবহারআমি প্রাভার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি এবং আশা করি এটি বাংলাদেশের জসাধারনের জন্যে সহায়ক হবে

 

নারায়ণা হেলথ

নারায়ণা হেলথের সদর দপ্তর ভারতের ব্যাঙ্গালোরে এবং এটি সারা ভারতের হাসপাতালগুলির মধ্যে একটি নেটওয়ার্ক পরিচালনা করে বিশেষ করে দক্ষিণ রাজ্যের কর্ণাটক ও পূর্ব ভারতে এর শক্তিশালী উপস্থিতি এবং পশ্চিম ও কেন্দ্রীয় ভারতে এর উদীয়মান উপস্থিতি বিদ্যমানব্যাঙ্গালোরের প্রায় ২২৫টি অপারেশন বেড প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমাদের প্রথম সেবা কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠিত হয় এবং সেখান থেকে আমরা ২৩টি হাসপাতাল, ৭টি হৃদরোগ পর্যালোচনা কেন্দ্র এবং ভারত জুড়ে প্রাথমিক যত্ন কেন্দ্রের একটি নেটওয়ার্কে পরিণত হয়েছিসেইসাথে আমরা কেইম্যান দ্বীপপুঞ্জে একটি আন্তর্জাতিক হাসপাতাল পরিচালনা করছিগ্রীনফিল্ড প্রোজেক্টস অ্যান্ড অ্যাকুইজিশন্সের সমন্বয়ে গঠিত এই দলটি বর্তমানে প্রায় ৫,৯০০ কর্মক্ষম শয্যা বিশিষ্ট। আমরা বিশ্বাস করি যে গুণমান, দক্ষ ডাক্তার এবং একটি দক্ষ ব্যবসায়িক মডেলের সমন্বয়ে এই বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে উচ্চমানের, সাশ্রয়ী স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে “নারায়ণা হেলথ” ব্র্যান্ড দৃঢ়ভাবে নিযুক্ত।

 

আমাদের কেন্দ্রটি সম্মিলিতভাবে কার্ডিওলজি এবং কার্ডিয়াক সার্জারি, ক্যান্সার পরিষেবা, নিউরোলজি এবং নিউরোসার্জারি, অস্থিবিদ্যা, নেফ্রোলজি এবং মূত্রবিদ্যা এবং গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজির পাশাপাশি ৩০টিরও বেশি ক্ষেত্রে সেবা প্রদান করে।

 

প্রাভা হেলথ:

প্রাভা হচ্ছে বাংলাদেশে পারিবারিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের একটি নেটওয়ার্ক স্বরূপ যেখানে রোগীদের সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয় আমরা সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় রোগীর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা গঠনে অগ্রসর হচ্ছি আমরা আপনাদের দিচ্ছি- পারিবারিক ডাক্তার দ্বারা পরামর্শ প্রদান এবং ল্যাবরেটরি ও ইমেজিং সহ একটি সম্পূর্ণ পরিসরের ডায়াগনস্টিক সেবা

 

আমাদের পরিসেবায় রয়েছে:

পারিবারিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে সব ধরনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

ভিজিটিং স্পেশালিস্ট

প্রাথমিক উন্নত প্যাথলজি সেবা (স্তন, সার্ভিকাল, ফুসফুস এবং কলোরেক্টাল ক্যান্সারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রথম মলিকিউলার ক্যান্সার ডায়াগনস্টিক ল্যাব (পিসিআর - পলিমারেজ চেইন রিলিজ)

ইমেজিং এবং টেলিরেডিওলজির সুবিধা

ইএইচআর (ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ডস) সহ বাংলাদেশের প্রথম সম্পূর্ণরূপে সমন্বিত এইচআইএস (হসপিটাল ইনফরমেশন সিস্টেম) সিস্টেম এবং ফোন অ্যাপ্লিকেশন ইন্টারনেটে সহজলভ্য প্রথ্ম পেশেন্ট পোর্টাল সিস্টেম

নিজস্ব ফার্মেসি

 

প্রেস অনুসন্ধানের জন্য অনুগ্রহ করে যোগাযোগ করুনঃ কুতুব উদ্দিন কামাল, প্রাভা হেলথের

কমিউনিকেশনস লিড, +৮৮-০১৭২৬-৩১০৬৯৩ নাম্বারে অথবা kkamal@praavahealth.com -এ।

 

 

*আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার ও জেনারেল হাসপাতালের সাথে প্রাভা হেলথের সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর

ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৮, ঢাকা, বাংলাদেশ - আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার ও জেনারেল হাসপাতালের সাথে প্রাভা হেলথের একটি স্মারকলিপি স্বাক্ষরিত হয়, যার মাধ্যমে আহছানিয়া মিশনের রোগীরা প্রাভাতে সাশ্রয়ী মূল্যে বিস্তৃত পরিসরে ক্যান্সার নির্ণয়ের বিভিন্ন পরীক্ষা সঞ্চালন করতে পারবেন।

 

"বাংলাদেশে মৃত্যুর ষষ্ঠ প্রধান কারণ হচ্ছে ক্যান্সারে মৃত্যু। আহসানিয়া মিশন প্রতি বছর শত শত ক্যান্সারের রোগীদের জন্য বিশ্বমানের চিকিৎসা সুবিধা প্রদান করে থাকে। আমদের লক্ষ্য টার্গেটেড এজেন্টের মাধ্যমে রোগীদেরকে বিশ্বমানের সেবা প্রদাঁন করা এবং প্রাভার সাথে অংশীদারিত্ব আমাদের এই লক্ষ্য পূরণে সাহায্য করবে।", অধ্যাপক ডাঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী, আহসানিয়া মিশনের ডিরেক্টর মেডিকেল সার্ভিসেস এবং রেডিয়েশন অনকোলজি বিভাগের প্রধান।

 

২০১৭ এর অক্টোবরে বাংলাদেশের প্রথম মলিকিউলার ক্যান্সার ডায়াগনসটিকস পিসিআর পরীক্ষা প্রাভাতে সঞ্চালিত হয়। কলোরেক্টাল, স্তন, সার্ভিকাল এবং ফুসফুসের ক্যান্সার সহ অনকোলজি মলিকিউলার ডায়গনস্টিকস সর্বাধিক কার্যকরী হিসেবে বিবেচিত হয় এবং প্রাথমিকভাবে সনাক্তকরণ এবং রোগব্যাধি ব্যবস্থাপনার উপর ভিত্তি করে ক্যান্সারে মৃত্যুহার কমাতে পারে। পূর্বে রোগীদের নমুনা স্থানীয়ভাবে সংগ্রহ করা হলেও পরীক্ষার জন্য তাদের বিদেশে পাঠানো হতোবর্তমানে বাংলাদেশে প্রাভাতে এই পরীক্ষা সঞ্চালনের মাধ্যমে বিদেশে নমুনা পরিবহনের ফলে যে ত্রুটির সৃষ্টি হতো, তার হার কমছে। একইসাথে রোগীর ব্যয় এবং রিপোর্টের জন্য টার্ন এরাউন্ড টাইমও উল্লেখযোগ্যভাবে কমে আসছে

 

প্রাভা হেলথের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও, আইনজীবী সিলভানা কিউ সিনহা বলেন, "দুর্ভাগ্যবশত বাংলাদেশে ক্যান্সারের কোনও রেজিস্ট্রি নেই- যার প্রতিষ্ঠার অংশ হতে আমরা আশাবাদী- কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি যে ক্যানসারের ঘটনা যতটা না রিপোর্ট করা হয়, তার চেয়ে অনেক বেশি। অনকোলজিতে মলিকিউলার ডায়াগনস্টিকস সর্বাধিক কার্যকরী হিসেবে বিবেচিত হয় যা প্রাথমিক সনাক্তকরণের পাশাপাশি কার্যকর চিকিৎসা প্রক্রিয়া চিহ্নিতকরণের উপর ভিত্তি করে ক্যান্সারে মৃত্যুহার কমাতে পারে। ক্যান্সার নিরীক্ষায় আহ্ছানিয়া মিশনের অংশীদার হতে পেরে এবং বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো অত্যাধুনিক ক্যান্সার ডায়গনিস্টিক সেবা প্রদানের সুযোগ পেয়ে প্রাভা অত্যন্ত আনন্দিত।"

 

প্রাভা হেলথের সিনিয়র ডিরেক্টর, হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুল, বস্টন, ম্যাসাচুসেটসের বেথ ইসরায়েল হাসপাতালের ইন্টারডিসিপ্লিনারি মেডিসিন অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের ইমিউনোবায়োলজি ল্যাবরেটরির প্রধান ডাঃ জাহিদ হুসেইন বলেন, "আহসানিয়া মিশন ১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের রোগীদের ক্যান্সারের চিকিৎসা প্রদান করছে। বাংলাদেশের প্রথমবারের মতো ক্যান্সার চিকিৎসায় সর্বশেষ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আহসানিয়া মিশন এবং প্রাভার রোগীদের মধ্যে সেতুবন্ধন গঠনই এই গুরুত্বপূর্ণ সহযোগের উদ্দেশ্যক্যান্সারের রোগীদের জন্য যথাযথ থেরাপি নির্ণয়কালে র‍্যাপিড টার্ন এরাউন্ড টাইম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।"

 

*** বাম থেকে ডানে- ডাঃ জাহিদ হুসেইন, জ্যেষ্ঠ পরিচালক, ক্যান্সার ডায়াগনস্টিক, প্রাভা হেলথ; মিস সিলভানা কাদের সিনহা, প্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও, প্রাভা হেলথ; অধ্যাপক ডাঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী, ডিরেক্টর মেডিকেল সার্ভিসেস, রেডিয়েশন অনকোলজি বিভাগের প্রধান, আহসানিয়া মিশন; ডাঃ সিমীন মজিদ আখতার, জ্যেষ্ঠ মেডিকেল পরিচালক, প্রাভা হেলথ।

*** বাম থেকে ডানে- মিস সিলভানা কাদের সিনহা, প্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও, প্রাভা হেলথ; মোঃ আবদুল জলিল খান, বিপণন পরিচালক; অধ্যাপক ডাঃ কামরুজ্জামান চৌধুরী, ডিরেক্টর মেডিকেল সার্ভিসেস, রেডিয়েশন অনকোলজি বিভাগের প্রধান, আহসানিয়া মিশন; ডাঃ জাহিদ হুসেইন, জ্যেষ্ঠ পরিচালক, ক্যান্সার ডায়াগনস্টিক, প্রাভা হেলথ; ডাঃ ফয়সাল রহমান, মেডিকেল সার্ভিসেস ডিরেক্টর; ডাঃ সিমীন মজিদ আখতার, জ্যেষ্ঠ মেডিকেল পরিচালক, প্রাভা হেলথ; মিঃ সাঞ্জিভ কৃষ্ণা পুবিচেটি, প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা, প্রাভা হেলথ।

আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার ও জেনারেল হাসপাতাল-

আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার ও জেনারেল হাসপাতাল ৫০০ শয্যার অলাভজনক সেবা ভিত্তিক তাত্ত্বিক পরিচর্যা হাসপাতাল, যা ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এটি প্রাথমিকভাবে বিশিষ্ট ক্যান্সারহাসপাতাল হিসেবে চালু হলেও, পরবর্তীতে সাধারণ রোগীদের জন্য বিভিন্ন সুবিধা অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

হাসপাতালটিতে রয়েছে সকল ধরনের ক্যান্সার রোগী ও সাধারণ রোগীদের পরিচর্যার জন্য আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন রেডিয়েশন অনকোলজি বিভাগ, মেডিকেল অনকোলজি, সার্জিকাল অনকোলজি, গাইনোকোলজি এবং অন্যান্য বিশেষ সুবিধা এবং অত্যাধুনিক গবেষণাগারের সুবিধা

 

প্রাভা হেলথ:

প্রাভা হচ্ছে বাংলাদেশে পারিবারিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের একটি নেটওয়ার্ক স্বরূপ যেখানে রোগীদের সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয় আমরা সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় রোগীর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা গঠনে অগ্রসর হচ্ছি আমরা আপনাদের দিচ্ছি- পারিবারিক ডাক্তার দ্বারা পরামর্শ প্রদান এবং ল্যাবরেটরি ও ইমেজিং সহ একটি সম্পূর্ণ পরিসরের ডায়াগনস্টিক সেবা

আমাদের পরিসেবায় রয়েছে:

পারিবারিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে সব ধরনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

ভিজিটিং স্পেশালিস্ট

প্রাথমিক উন্নত প্যাথলজি সেবা (স্তন, সার্ভিকাল, ফুসফুস এবং কলোরেক্টাল ক্যান্সারের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রথম মলিকিউলার ক্যান্সার ডায়াগনস্টিক ল্যাব (পিসিআর - পলিমারেজ চেইন রিলিজ)

ইমেজিং এবং টেলিরেডিওলজির সুবিধা

ইএইচআর (ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ডস) সহ বাংলাদেশের প্রথম সম্পূর্ণরূপে সমন্বিত এইচআইএস (হসপিটাল ইনফরমেশন সিস্টেম) সিস্টেম এবং ফোন অ্যাপ্লিকেশন ইন্টারনেটে সহজলভ্য প্রথ্ম পেশেন্ট পোর্টাল সিস্টেম

নিজস্ব ফার্মেসি

 

প্রেস অনুসন্ধানের জন্য অনুগ্রহ করে যোগাযোগ করুনঃ কুতুব উদ্দিন কামাল, প্রাভা হেলথের কমিউনিকেশনস লিড, +৮৮-০১৭২৬-৩১০৬৯৩ নাম্বারে অথবা kkamal@praavahealth.com -এ।

 

*প্রাভা হেলথের প্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও সিলভানা কাদের সিনহা

০৪ জানুয়ারি, ২০১৮

প্রগতিশীল যুগেরও আগে থেকে নারীরা সর্বদা তাদের সক্রিয়তার পরিচয় তুলে ধরেছে তাই তো বেগম রোকেয়া, সুফিয়া কামাল এবং জোহরা বেগম কাজীর মত পথপ্রদর্শকেরা অন্যান্য দিশেহারা নারীদের আলোর পথ দেখিয়ে গেছেন বহুকাল ধরে চলে আসা লিঙ্গ বৈষম্য থাকা সত্ত্বেও তাদের অদম্য মননশক্তি ও সমাজের প্রতি তাদের অবদান, বহু প্রজন্মের নারীদের জন্য নির্দেশিকা হিসেবে কাজ করেছেতবে সময়ের পরিক্রমায় এ অবস্থার পরিবর্তন ঘটেছে; বর্তমানে কর্পোরেট ফ্রন্টে পুরুষ শাষিত ক্ষেত্র হিসেবে বিবেচনা করা হয় এমন অনেক জটিল স্তরে নারীরা স্বাচ্ছন্দ্যে কাজ করছেসিলভানা কাদের সিনহাও এই প্রজন্মের অগদূত নারীদের মধ্যে একজনবৈদেশিক নীতি, উদীয়মান বাজার, এবং উন্নয়নের ক্ষেত্রে পরিপূর্ণ জ্ঞান বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা শিল্প নিয়ে তার দর্শনকে বাস্তবায়নে সাহায্য করছেপ্রাভা হেলথ প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবায় পদ্ধতিগত পরিবর্তন আনাই মিস সিলভানার উদ্দেশ্য

 

একজন নারী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) পাশপাশি স্বাস্থ্য বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হিসেবে বাংলাদেশে প্রাভা হেলথের মতো একটি মেডিকেল সুবিধা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আপনাকে কি কি চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়েছিল?

প্রতিটি দিন একটি নতুন অ্যাডভেঞ্চার, একটি নতুন চ্যালেঞ্জতাই আমি অপ্রত্যাশিতকে প্রত্যাশা করা শিখে গেছি। আমি মনে করি বাংলাদেশে একটি বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে মানুষের মূলধন ছিল আমাদের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ তবে সত্যি বলতে এটা তেমন কঠিন ছিলনা, যেমনটা আমি ভেবেছিলাম। প্রাভার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কিছু অসম্ভব প্রতিভাবান ব্যক্তিদের পাশে পেয়ে আমরা খুবই ভাগ্যবান এবং কৃতজ্ঞ

 

পিডব্লিউসি এর একটি স্ট্যাট্রেজি ও রিপোর্ট অনুযায়ী বিশ্বের ২৫০০ বৃহত্তর সরকারী প্রতিষ্ঠানে নারী সিইও’র আগমনের হার মাত্র ২.৮%স্বাস্থ্যসেবা সংস্থার ক্ষেত্রে এটি আরো কম, ১.৬%। কিভাবে তারা স্বাস্থ্যসেবা খাতে প্রাতিষ্ঠানিক ভূমিকায় আসতে অনুপ্রাণিত হতে পারে বলে আপনি মনে করেন?

বিশ্বব্যাপী ও স্থানীয়ভাবে নারীর ক্ষমতায়নে পদ্ধতিগত ও প্রাতিষ্ঠানিক বাধা রয়েছে। তবে প্রধানপমন্ত্রী, সংসদ স্পিকার, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী সহ বিভিন্ন নেতৃস্থানীয় পদের পাশাপাশি ব্যবসাতে প্রভাবশালী পদের দিক দিয়ে নারীর ভূমিকার ক্ষেত্রে আমাদের সমকক্ষ দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশ অনেক ভালো করছেএরপরও নারীদের প্রায়ই অবমূল্যায়ন করা হয়। অবশ্য এটি আমাকে খুব বেশী ভাবায় না, বরং কিছু ক্ষেত্রে অবমূল্যায়িত হওয়ার পর আমার কাজ আমার হয়ে জবাব দেয়। সত্যি বলতে আমি মনে করি বাংলাদেশে লিঙ্গ সংক্রান্ত বৈষম্যের চেয়ে অর্থ-সামাজিক বাধা অতিক্রম করা বেশি কঠিন।

 

বাংলাদেশে মেডিকেল সেবায় নারী চিকিৎসকেরা প্রায়ই নারী স্বাস্থ্য ও শিশুরোগ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হতে মনস্থির করেন। আমি আশা করি আমাদের নারীরা মেডিকেলের অন্য বিভাগগুলোতেও ছড়িয়ে পরবেন আমরা প্রাভা হেলথের সিনিয়র মেডিকেল ডিরেক্টর ডাঃ সিমীন আখতারকে নিয়ে গর্বিত, যিনি কোয়ালিটি এবং হসপিটাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে বহু বছর কাজ করার পাশাপাশি তার বিশেষত্ব তথা ইন্টার্নাল মেডিসিনের উপর সারা বিশ্বে প্র্যাকটিস করেছেন। চিন্তার ধারা পরিবর্তিত হচ্ছে, এবং আমি আশা করি এটি বহাল থাকবে।

 

সেবার দিক দিয়ে প্রাভা হেলথে আপনি কোন মানগুলো অনুমোদন করেন? স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানির পাশাপাশি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের থেকে এটি কীভাবে ভিন্ন?

প্রাভা হেলথ একটি বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার স্বপ্ন দেখে যেখানে রোগীদের সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয় এর প্রত্যেকটি প্রক্রিয়া রোগীদের দ্রুততার সাথে প্রয়োজনীয় সমাধান প্রদান করতে ডিজাইন করা হয়েছে। আমরা পারিবারিক চিকিৎসকের ধারাটিকে আবার ফিরিয়ে আনছি, যার সাথে আপনার ব্যক্তিগত পরিচয় থাকবে আছেযিনি আপনার চিকিৎসা ইতিহাস সম্পর্কে সম্পূর্ণ অবগত থাকবেন এবং আপনার স্বাস্থ্যকে নিয়ন্ত্রণ করতে সহযোগিতা করবেন<