প্রাভা কমিউনিটিতে স্বাগতম

পরিচিত হোন আমাদের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও-র সাথে


ছয় বছর আগে, আমার মাকে বাংলাদেশের একটি শীর্ষ হাসপাতালে মৌলিক সার্জারির জন্য ভর্তি করা হয়েছিল। আমরা আশা ছিলাম যে নিয়মিত প্রক্রিয়া মসৃণ হবে, তবে তাকে এমন নাটকীয় জটিলতার মুখ দেখতে হয়েছিল যে আমরা ধরে নিয়েছিলাম উনাকে আমরা প্রায় হারিয়ে ফেলেছি। অভিজ্ঞতা সবচেয়ে বেদনাদায়ক অংশ ডাক্তারের ব্যবহার ছিল। আমার মায়ের জীবনের সবচেয়ে খারাপ দিনগুলো ছিল সেগুলো, আমার বোন এবং আমি কেন আমাদের মা ঘন ঘন বাইল বমি করছেন জিজ্ঞেস করতে গেলাম, কিন্তু ডাক্তার আমাদের অনুসন্ধান উপেক্ষা করে রুম থেকে বেরিয়ে গেলেন। আমার স্পষ্টভাবে মনে আছে যে আমাদের সাধারণ প্রশ্নের জবাব পাওয়ার জন্য বেশ কয়েক ধাপ সিঁড়ি টপকে দৌড়ে ডাক্তারকে অনুসরণ করে গিয়েছিলাম, আমাদের মা এর ব্যথার ব্যাপারে তাদের উদাসীনতা আমাদের সম্পূর্ণ অসহায় বোধ করিয়েছিল। সর্বশেষে, যখন আমাদের পরিবারের আর কোন বিকল্প নেই, আমার মাকে ব্যাংককে নিতে হল, যেখানে তার দ্বিতীয় সার্জারি করার এক বছর পর, মূল অপারেশন থেকে উদ্ভূত জটিলতাগুলির কারণে, তাকে তৃতীয় অস্ত্রোপচারের সম্মুখীন হতে হয়েছিল।

 

বেশিরভাগ বাংলাদেশিদের মতো, আমি এই ধরনের দারুন ভয়ঙ্কর অন্যান্য ঘটনাগুলির সাথে অংশীদার হতে পারি, যা প্রাইভেট স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে আমার নিজের পরিবারের অভিজ্ঞতার মতই ছিল।

 

আমি জন্মসূত্রে একজন অ্যামেরিকান কিন্তু আমার রক্তের সূত্র বাংলাদেশ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দুটি সর্বোত্তম বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি আন্তর্জাতিক আইন এবং আন্তর্জাতিক উন্নয়নের বিষয়ে পড়াশুনা করেছি। উন্নয়ন ও প্রভাবের জন্য আমার আবেগ ছোটবেলা থেকে আমার বাংলাদেশে ভ্রমণের কারনেই, এর প্রেক্ষিতে অনুপ্রাণিত হয়ে নিউ ইয়র্ক সিটি গিয়ে একটি পুরস্কৃত কর্মজীবন শুরু হয় আমার। গত ১৫ বছর ধরে আমি আন্তর্জাতিক আইন সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক সংস্থায় কাজ করেছি, ব্যক্তিগত ও সরকারী খাতের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী মানুষের জন্য মানবাধিকার ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার জন্য।

 

আমার মায়ের অভিজ্ঞতার পর, আমি বাংলাদেশে স্বাস্থ্য খাতে জরুরী বিপ্লব করার প্রয়োজনের কথা চিন্তা করি। আমি সেই বিপ্লবের অংশ হতে চেয়েছিলাম।

 

সুতরাং, আমি প্রাভা হেল্‌থ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য নিয়ে একেবারে বাংলাদেশে চলেই আসলাম।

 

সঠিক স্বাস্থ্য সেবা আমাদের মৌলিক মানব অধিকার। প্রতিটি রোগীর যত্ন এবং সম্মানের সঙ্গে চিকিত্সা করা অত্যাবশ্যক। আমার নিজের অভিজ্ঞতা, এবং আপনার, আমাকে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য কেন্দ্র কল্পনা করতে বাধ্য করেছে, যেখানে ডাক্তার এবং রোগীর মধ্যে বিশ্বাস কিছু ভাগ্যবান মানুষদের বিলাসিতা নয়, কিন্তু প্রত্যেক নাগরিকের জন্য অধিকার এবং বাস্তবতা।

 

প্রাভার টীম একটি স্বাস্থ্যব্যবস্থা তৈরি করেছে যেখানে রোগীরা প্রাধান্য পায় সবকিছুর ঊর্ধ্বে - পারিবারিক ডাক্তারদের সঙ্গে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বহির্প্রায় নেটওয়ার্ক এবং নির্ভরযোগ্য নির্ণয়ের ও গুণমানের নিশ্চয়তা। যেহেতু সমস্ত স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত প্রয়োজনীয়তা ৮০-৯০% পারিবারিক ডাক্তার দ্বারাই চিকিৎসা করা যায়, প্রাভা পরিবারের ডাক্তার ইউনিট আমাদের রোগীদের জন্য প্রথম এন্ট্রি পয়েন্ট হবে। প্রাভা হেল্‌থ-এর বৈশিষ্ট্য হবে পারিবারিক স্বাস্থ্য বিশেশজ্ঞদের একটি দলীয় অনুশীলন, যার অন্তর্ভুক্ত থাকছে স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ এবং শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ, এবং একই সাথে একজন পুষ্টি বিশেষজ্ঞ এবং একজন ফিজিক্যাল থেরাপিস্টও থাকবেন। যেসকল রোগীদের অন্যান্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শের প্রয়োজন হবে তাদের জন্যে প্রাভার স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পরিদর্শনকারী বিশেষজ্ঞদের একটি আলাদা ফ্লোর বরাদ্দ করা আছে। 

 

যথাযথ যত্ন সঠিক নির্ণয়ের উপর নির্ভর করে। আমরা যে ডায়াগনস্টিক সেবা প্রদান করবো তার মধ্যে রয়েছে প্রাথমিক ও উন্নত রোগবিদ্যা, যেমন স্তন, সার্ভিক্যাল এবং কোলন ক্যান্সারের মতো নির্দিষ্ট ক্যান্সারে বাংলাদেশের প্রথম মলিকিউলার ক্যান্সার ডায়াগনস্টিক ল্যাব; এবং এক্স-রে, আলট্রা-সোনোগ্রাম, ডিএক্সএ (অস্থি মজ্জার ঘনত্ব), সিটি, এবং এমআরআই স্ক্যান সহ প্রাথমিক এবং উন্নত ইমেজিং। প্রাভার পরিকল্পনা হচ্ছে এই সুবিধাগুলো প্রদানের জন্য আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখা এবং আন্তর্জাতিক অনুমোদন প্রাপ্তি।

 

ডাক্তার এবং রোগীর মাঝে একটি মৌলিক ভারসাম্যহীনতা কাজ করে, ডাক্তারের চিকিৎসা বিদ্যা জানা আছে সুতরাং তিনি বোঝেন যে শরীরের কোথায় কি হচ্ছে, অন্যদিকে একজন রোগী কিন্তু তার শারীরিক ভোগান্তির কারণ নাও বুঝতে পারেন। সহানুভূতিশীল যত্নের জন্য ডাক্তারের দায়িত্ব হলো প্রত্যেক রোগীকে আত্মবিশ্বাসের সাথে চিকিত্সা করা, তাদের গোপনীয়তা গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করা এবং সঠিকভাবে চিকিৎসা করা।

 

আমরা ক্রমাগতভাবে শুনেছি যে বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবার সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো বিশ্বাসের অভাব। আসলে, রোগীরা অত্যন্ত ভাল বোধ করেন যখন তাদের ডাক্তাররা তাদেরকে চেনার ও জানার জন্য সময় ব্যয় করে। "পেশেন্ট-কেন্দ্রিক সেবা" প্রকৃতপক্ষে ডাক্তার-রোগীর সম্পর্কের গুণমান বাড়িয়ে রোগীদের ক্লিনিক্যাল ফলাফল এবং সন্তুষ্টি উন্নত করে, একই সময়ে ডায়াগনস্টিক পরীক্ষা, প্রেসক্রিপশন, হাসপাতালে ভর্তি এবং রেফারালগুলির সামগ্রিক স্বাস্থ্যসেবার খরচ এবং অপ্রতুলতা কমে যায়। পেশেন্ট-কেন্দ্রিক সেবা স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে একটি সামগ্রিক পদ্ধতি। এই পদ্ধতির মাধ্যমে পেশেন্টদের ডায়াগনোসিস এবং সম্ভাব্য চিকিৎসার ব্যাপারে শেখানোর বাইরে আরও অনেক কিছু হয়, যেমন তাদের ব্যাক্তিগত অবস্থা এবং পছন্দ অনুযায়ী তাদের চিকিৎসা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেবার সময়ে তাদের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করা। রোগীর কেন্দ্রিক যত্নের প্রয়োজন রোগীদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, ব্যক্তিগত পছন্দ এবং মূল্যবোধ, পারিবারিক পরিস্থিতি, সামাজিক পরিস্থিতি এবং জীবনধারাগুলির মুক্ত যোগাযোগ এবং বিবেচনা। এখানে ডাক্তারের জন্যে তার প্রতিটি রোগীকে ব্যক্তিগতভাবে চেনা ও জানা অত্যাবশ্যক।

 

এই প্রাভাই বাংলাদেশের নিয়ে আসছে এই রোগীর যত্নের ধারণাসমূহ। আমরা আপনার স্বাস্থ্যের বিশ্বস্ত অংশীদার হতে চাই বাংলাদেশে, এই চিন্তাগুলো আমাদের সাথে অনেক ডাক্তারেরা সমানভাবে অনুভব করেন, এবং আমরা সক্রিয়ভাবে আমাদের টীমকে প্রসিদ্ধ করছি এদের অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে, এবং আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছানর উদ্দেশ্যে। (যদি আপনি আমাদের সাথে যোগ দিতে চান, আমাদের ইমেইল করুন!)

 

যেদিন আমি প্রাভার প্রথম স্বাস্থ্যকেন্দ্রের প্রবেশের ফিতাটি কাটবো, আমার চিন্তায় থাকবে সেই দিনটি যেদিন আমি দুইতলার সিঁড়ি বেয়ে ডাক্তারের কাছে ছুটে গিয়েছিলাম একটি সাধারণ প্রশ্নের উত্তর জানতে। সেদিন আমি আপনার জন্য এবং আমার পরিবারের জন্য একটি সম্পূর্ণ নতুন ধরনের সেবার দিকে উন্মুখ হয়ে থাকব – যা কিনা উচ্চ মানের, সাশ্রয়ী মূল্যের সেবা এবং ডায়াগনস্টিকস যা আমাদের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থায় বিশ্বাস, নির্ভরযোগ্যতা এবং জবাবদিহিতা প্রদান করে।

 

বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবার একটি নতুন প্রজন্মে আপনাদের স্বাগতম জানাই। আপনাদের সবাইকে প্রাভার প্রথম স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে দেখবার আশা রাখছি, যা ২০১৭ইং সালে ঢাকায় উদ্বোধন হতে যাচ্ছে।

https://youtu.be/2tKh708UEQw